Sunday, April 11, 2021

গিটহাব কী ও কেন?

 

গিটহাব

গিটহাব হচ্ছে এমন একটি ওয়েব-ভিত্তিক হোস্টিং সেবা।যেখানে তুমি চাইলে তোমার সমস্ত কোড সেখানে রেখে দিতে পারো,সেটা হতে পারে ওপেন অথবা প্রাইভেট।সহজ কথায় গিটহাব হচ্ছে একটি সোর্স কোড ম্যানেজমেন্ট বা এসসিএম।

আগেই বলে নিচ্ছি গিট আর গিটহাব দুইটা আলাদা জিনিস।কারণ গিট হলো ভার্সন কন্ট্রোল সিস্টেম আর গিটহাব হচ্ছে এমন একটি প্লাটফর্ম,যেখানে সবাই তাদের কোডগুলো রেখে দিতে পারে।আমি এখানে শুধুমাত্র গিটহাব নিয়ে আলোচনা করছি।

গিটহাব তৈরি করেছিলো চারজন আমেরিকান প্রোগ্রামার Chris Wanstrath,P. J. Hyett,Tom Preston-Werner এবং Scott Chacon-এর দ্বারা এবং এটি চালু করা হয়েছিলো ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। এরপর ২০১৮ সালে, অন্যতম টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট ৭.৫ বিলিয়ন ডলারে সেটি কিনে নেয়।

সাধারণত একজন ইউজার তাঁর তৈরি প্রজেক্টগুলো গিটহাবে হোস্ট করে অন্যান্য ডেভেলপারদের সাথে শেয়ার করতে গিটহাব ব্যাবহার করে থাকে।যেমন ধরো তুমি একটা সফটওয়্যার কোম্পানিতে আবেদন করতে চাচ্ছো, তুমি চাও তোমার কোম্পানি যেনো তোমার তৈরি কাজগুলো দেখতে পারে সেক্ষেত্রে তোমার তৈরি অথবা গিটহাবে হোস্ট করা প্রজেক্টগুলো সিভিতে উল্লেখ করে দিতে পারো। এক্ষেত্রে তোমার কোম্পানির জন্য খুব সহজ হবে তোমাকে যাচাই করা আর তোমার জন্য সহজ হবে কোম্পানির কাছে তোমাকে স্মার্ট হিসেবে তুলে ধরা।

তবে দেরি কেনো?যাও এখনি তৈরি করো তোমার গিটহাব একাউন্ট,এখান থেকে-www.github.com
গিটহাবে কোডগুলো রাখতে তোমাকে একটি রিপোজিটরি (Repository) তৈরি করতে হবে।

রিপোজিটিরো তৈরি করা
        রিপোজিটিরো তৈরি করা


কীভাবে রিপোজিটরিটি তৈরি করবে সেটা জানতে এই আর্টিকেলটি পড়ো-
https://help.github.com/articles/create-a-repo/

তুমি চাইলে রিপোজিটরিটি প্রাইভেট করে দিতে পারো।তাহলে কেউ তোমার রিপোজিটরিটি ব্যাবহার করে কাজ করতে পারবে না।তবে পাবলিক করে রাখাই ভালো তাহলে তোমার কাজগুলো সবাই দেখতে পারবে।ফলে যেকেউ চাইলে সেটি ব্যাবহারও করতে পারবে,এটাকে বলা হয় ফর্ক।

       কয়জন ফর্ক করেছে সেটা দেখার পদ্ধতি


ফর্ক সম্পর্কে বিস্তারিত পাবে এখানে- https://help.github.com/articles/fork-a-repo/

গিটহাব ও গিটের মধ্যে গন্ডগোল পাকিয়ে ফেললে।চলে যাও সুবিন ভাইয়ের এই আর্টিকেলটিতে-www.subeen.com/

প্রোগ্রামিং ভালোবাসি আর ধর্মকে সাথে করে বাঁচতে চাই।অন্যায় আর অধর্মকে ঘৃণা করি।বইয়ের সাথে আমার প্রচুর ভাব। আমার প্রফেশনাল পরিচয় হলো "কম্পিউটারের পোকা"।

0 Comments: