Thursday, January 28, 2021

ব্লগার কী?

Blogger


নিজের একটা ওয়েবসাইট থাকুক,সেটা কে না চায়।কে না চায় যে আমার একটা নিজস্ব ব্লগ থাকুক।কে না চায় আমার ওয়েবসাইট বা ব্লগটি শতভাগ নিরাপদ থাকবে,হ্যাকিং মুক্ত থাকবে।হ্যাঁ এর সব গুলোই সম্ভব আর তার জন্য আমরা ব্যাবহার করব গুগলের ব্লগ তৈরির প্লাটফর্ম ব্লগার । অবাক করার কথা হলো ব্লগার দিয়ে শুধু নিজস্ব ব্লগ নয় এখন যেকোন ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব।সাইটটির নিরাপত্তা নিয়েও কোন চিন্তা নেই। কারণ গুগল নিজেই সাইটটির নিরাপত্তার দায়িত্ব নিয়েছে। খুব অল্প দিনেই ব্লগার জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে গেছে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র, ইন্দোনেশিয়া,ভারত এবং ব্রাজিলে ব্লগারের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে।


ব্লগার সম্পর্কে নতুন করে বলার কিছুই নেই। তবে যারা জানে না তাদের জন্য আজকের এই ব্লগ।


এবার ফিরে আসি মূল বিষয়ে। আগেই বলেছি আজকের এই ব্লগটি হলো একদম নতুনদের জন্য। আজকের এই ব্লগটিতে আমরা জানবো ব্লগার সম্পর্কে।

Pyra Labs
                               চিত্রঃ পাইরা ল্যাবস


ব্লগার হলো একটি উন্মুক্ত ব্লগ তৈরির প্ল্যাটফর্ম। আরো সহজভাবে বলতে গেলে ব্লগার হলো গুগলের এমন একটি সেবা যা দিয়ে মুক্তভাবে যেকোন ধরনের ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করা যায়।১৯৯৯ সালে পাইরা ল্যাবস এটি ডেভলপ করে। ব্লগার তৈরি করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারের সহ-প্রতিষ্ঠাতা Evan Williams এবং কিনজা'র সহ-প্রতিষ্ঠাতা Meg Hourihan । তখন এটির নাম ছিল ব্লগস্পট। পরবর্তীতে ২০০৩ সালে গুগল নিজেদের ভবিষ্যৎ চাহিদার কথা চিন্তা করে এটি কিনে নেয় এবং ২০০৬ সালে তাদের নিজস্ব সার্ভারে হোস্ট করে। গুগল ব্লগস্পটের সাবস্ক্রিপশন চার্জ বাতিল করে ও ব্লগস্পটকে বিনামূল্যের সেবার আওতায় নিয়ে আসে। তখন এটি ছিল ইন্টারনেটের প্রথম দিককার ব্লগ তৈরির প্লাটফর্ম।

Evan Williams
                            চিত্রঃ Evan Williams

টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান গুগল ব্লগ তৈরির এই প্লাটফর্ম ব্লগস্পটকে ব্লগার নামকরণ করে‌। ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরি করতে যেটা দরকার সেটা হলো জিমেইল অ্যাকাউন্ট। শুধুমাত্র একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেই ব্লগিং শুরু করা যায়, কোন ধরনের ডোমেইন ও হোস্টিং এর প্রয়োজন হয় না। আরেকটু সহজ ভাবে বললে,ব্লগারে অ্যাকাউন্ট খোলার সাথে সাথেই ব্লগিং শুরু করা যায়। কেননা ব্লগার বিনামূল্যে সাব ডোমেইন নেম প্রোভাইড করে থাকে ।

যেমনঃexample.blogspot.com ব্লগারের আরেকটি সুবিধা হচ্ছে ওয়েবসাইটের মালিক চাইলে সেখানে যেকোন থার্ড পার্টি ডোমেইন নেম ব্যাবহার করতে পারবে যেমনঃ example.com তারজন্য নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে অন্য কোন ডোমেইন প্রোভাইডারের কাছ থেকে ডোমেইন কিনতে হবে।তারপর ডোমেইনের DNS ম্যানেজম্যান্ট করে ব্লগারে যুক্ত করে দিলেই হবে।এখন অবশ্য গুগল নিজেই ব্লগারের জন্য টপ লেভেল ডোমেইন প্রোভাইড করে। তোমরা জেনে অবাক হবে তামিম শাহরিয়ার সুবিনের

http/cpbook.subeen.com সাইটটি ব্লগার দিয়ে তৈরি। ব্লগারে কোডিং ছাড়াই ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করা যায়। ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য ব্লগারের রয়েছে সুন্দর সুন্দর থিম। এছাড়াও বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস থেকে থার্ড পার্টি থিম বা ব্লগার টেমপ্লেট পাওয়া যায়।যেগুলো দিয়ে কম খরচে ভালো মানের ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়।

Google
                 চিত্রঃ সর্ব বৃহৎ টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান গুগল


ব্লগারের ওয়েব সাইটগুলো হয় খুব শক্তিশালী। গুগলের নিজস্ব সার্ভারে হোস্ট থাকার ফলে এসব সাইটগুলো সহজে ডাউন হয় না। ব্লগারের আরেকটি অন্যতম সুবিধা হলো এখানে কোনো স্টোরেজ সীমা নেই,তাই যতখুশি ইচ্ছে তত স্টোরেজ ব্যাবহার করা যায়।


ব্লগারকে যারা ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চায় তাদের জন্য গুগলের ব্লগার হলো সবচেয়ে ভালো প্লাটফর্ম। কারণ এখানে খুব সহজেই গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে আয় করা সম্ভব। বর্তমানে ব্লগার ৬০ টি ভাষায় উপলব্ধ।


ও আরেকটি কথা, যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট শিখতে চাও তারা প্রথমে ব্লগার দিয়ে সাইট তৈরি করো।এতে ওয়েবসাইটের লেআউট সম্পর্কে ধারণা হয়ে যাবে,ব্লগারে পোস্ট দেওয়ার পর তার embed দেখে দেখে html ও শেখা হয়ে যাবে। এছাড়াও এর মাধ্যমে সহজেই SEO শিখতে পারবে।

প্রোগ্রামিং ভালোবাসি আর ধর্মকে সাথে করে বাঁচতে চাই।অন্যায় আর অধর্মকে ঘৃণা করি।বইয়ের সাথে আমার প্রচুর ভাব। আমার প্রফেশনাল পরিচয় হলো "কম্পিউটারের পোকা"।

0 Comments: